আরাফাত জাহান; একজন সফল উদ্যোক্তা।

ফারজানা নিপা, ঢাবি। | প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৯:৪৯; আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৯:৫০

আরাফাত জাহান। ছবিঃ সংগৃহীত

আরাফাত জাহান পড়েছেন গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজে গৃহব্যবস্থাপনা ও গৃহায়ণ বিভাগে। ২০০২ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে এই বিভাগে ভর্তি হন। বাবা মায়ের ৩ কন্যার মধ্যে সবথেকে ছোট কন্যা আরাফাত জাহান। তবে এই স্বপ্নবিলাসী নারী সবার কাছে 'কনা' নামেই পরিচিত। ২০১০ সালে নিজের পছন্দের মানুষের সাথে ঘর বাঁধেন এই স্বপ্নবিলাসী নারী। সংসারটাকে যতটা সহজ ভেবেছিলেন সংসার ততটা তার কাছে সহজভাবে ধরা দেয়নি। বাস্তবতাটা স্বপ্নের থেকে একটু বেশিই রূঢ়। বিয়ের দুই বছর পর জন্ম নেয় প্রথম সন্তান নুসাইব।

প্রথম সন্তান নাকি বাবা মায়ের কাছে পুতুলের মত।তাকে নিয়ে বাবা মায়েরা বিভোর থাকেন। প্রথম সন্তান জন্ম নেয়ার তিন বছর পর দ্বিতীয় সন্তানের মা হন আরাফাত জাহান। ঢাকায় সাথে কেউ না থাকার কারনে তার একারই দুই সন্তানকে লালন পালনের দায়িত্ব পড়ে। তাই স্বামী-সন্তান-সংসার দেখভাল করতে যেয়ে নিজের দিকে,ক্যারিয়ারের দিকে তাকানোর সময়ই পাননি তিনি। অনেক অনেক স্বপ্ন থাকলেও সেই স্বপ্নের চূড়ায় এখনো পৌঁছাতে পারেননি তবে তাই বলে যে তিনি থেমে আছেন কিংবা থেমে থাকবেন তা নয় বরং একটু একটু করে এগোতে চাচ্ছেন নিজের স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে। একটা সময় যখন নিজের বন্ধু বান্ধবীরা ভাল চাকরি করেছে তখন আরাফাত জাহান নিজের ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা করার সময়ই পাননি। অনেকেই অনেক কথা শুনিয়েছে। পাশের লোকদের কথা শুনে সাময়িক খারাপ লাগলেও পরক্ষনে সন্তানদের মুখের দিকে তাকিয়ে সব সামলে নিয়েছেন। সন্তানদের একটু বড় হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন আরাফাত জাহান। তবে এত এত মানুষের কটাক্ষের মধ্যেও যে মানুষটা তার পাশে থেকে সাহস যুগিয়েছে,কাঁধে ভালবাসার হাত রেখে ভরসা দিয়েছে তিনি হলেন তার জীবনসঙ্গী।

সংসার হলো একটা দিকচক্র যানের মত যেখানে স্বামী-স্ত্রী হলেন সেই যানের দুই চাকা। আর তার স্বামী সংসার নামক সেই দ্বিচক্রের একটি চাকা হয়ে অন্য চাকাকে ভেঙে পড়তে দেননি। স্বামীর উৎসাহেই আবার নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন তিনি। সন্তানেরাও এখন বড় হয়েছে,স্কুলে ভর্তি হয়েছে। এখন তিনি কাজে ফিরতে চান। গৃহব্যবস্থাপনা ও গৃহায়ণ বিভাগে পড়ে তিনি শিখেছেন কিভাবে গৃহ ব্যবস্থাপনা করা যায়,কিভাবে পরিকল্পনা,সংগঠন,নেতৃত্ব ও নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে গৃহ পরিচালনা করা যায়। নিজের শেখা জ্ঞানটুকু কাজে লাগাতে চান তাই নিজেই একটি ইন্টেরিয়র ফার্ম খুলেছেন,নাম দিয়েছেন "আরাফাত ইন্টেরিয়র ও ডেকোরেশন"। দুই সন্তানের মত এটাকেও তার আরেকটা সন্তানের মত লালন করে বড় করতে চান।নিজের স্বপ্ন পূরণে পিছিয়ে পড়লেও হারিয়ে ফেলতে চান না নিজের গড়া স্বপ্নগুলোকে।সময় নিয়ে হলেও একটু একটু করে বাস্তবতার রূপ দিতে চান তার স্বপ্নগুলোকে।আর সেই লক্ষ্যেই এগোচ্ছেন এই স্বপ্নবিলাসী নারী।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top