সৌন্দর্য্য থাকে স্বত্তায়, গায়ের রং-এ নয়।

নারীকথন | প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০২০ ২৩:২৭; আপডেট: ৯ অক্টোবর ২০২০ ১২:১১

ছবিঃ ইন্টারনেট

নারী তুমি সার্থক কারিগর, তুমিই অনুপ্রেরণা, তুমিই রহস্যের অপার বিস্ময়। প্রতিটা নারী তার নিজ অবস্থান থেকে সবচেয়ে সুন্দর। একজন নারীর সৌন্দর্য হচ্ছে তার ব্যাক্তিত্ব যা সমাজ সবসময় অস্বীকার করে। সমাজের চোখে নারীর সৌন্দর্য বলতে সাধারণত গায়ের রং,কিংবা উচ্চতাকে বোঝানো হয়। আসলে কি তাই? গায়ের রং নিয়ে হীনমন্যতার কারণে অনেক মেয়ে আত্মহত্যার মতো কাজে প্ররোচিত হচ্ছে। একটি মেয়ের অধিকার হলো তার সৌন্দর্য, তার ম্যানেজিং ক্যাপবলিটি। তার গায়ের রং কিংবা উচ্চতায় নয়।

হাজার প্রতিকূলতার মধ্যে নিজেকে এ্যাডজাস্ট করতে পেরেছে, নিজের অবস্থানকে কোথায় নিয়ে যেতে পেরেছে সেটাই তার সফলতা। ইন্টারন্যাশনাল প্লাটফর্মে সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা গুলো লক্ষ করে দেখা যাবে সেখানে শুধু গায়ের রং নিয়ে কেউ জয়ী হয় নাহ। ২০১৯ সালে মিস ওয়াল্ড (toni-ann singh)ও মিস ইউনিভার্সেস ( zozibini tunzi)জয়ী হয়েছেন দুজনই আফ্রিকান। সেক্ষেত্রে নারীর গায়ের রং যে সমাজে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করার প্রতিবন্ধকতা নয় স্পষ্ট বলা যায়। সৌন্দর্য মনে গায়ের রং এ নয়। বর্তমান সমাজে দেখা যায় গায়ের রং ফর্সা হওয়াতে মাধ্যমিক পাস করা মেয়ের বিয়ে হচ্ছে প্রতিষ্ঠিত পরিবারের ছেলের সংঙ্গে যেখানে গায়ের রং কালো হওয়ায় মাস্টার্স শেষ করা মেয়ে ও সমাজের কাজে হেয় হচ্ছে শারীরিক গঠন নিয়ে। তাহলে কি উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত মেয়েটির মেধা হেরে গেলো সমাজের ট্যাবুর আছে? সমালোচনার কাছে?

তার যোগ্যতা, সফলতার গল্প আটকে গেলো শুধুই গায়ের রং ফর্সা না কালো এই বর্ণ ভেদাভেদে। ‘কালো’ মেয়েদের প্রতিনিয়ত কটাক্ষ করে চলছে সমাজ যারা মনে করে যোগ্যতা নয় গায়ের ‘রং’ ফর্সা হলেই ভাল চাকুরী পাওয়া যায়, ভাল হাসবেন্ড পাওয়া যায়, সবার কাছে শ্রদ্ধার পাত্রী হওয়া যায়, কর্মক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হওয়া যায়! এখুনি সময় ঐসব পুঁজি বাদীদের মুখোশ উন্মোচন করার!! সৌন্দর্য এবং কালো পরস্পর বিপরীত শব্দ নয়। একই শব্দের সমার্থক শব্দ। একজন নারী স্বত্তায় সৌন্দর্য তখনই হয়ে ওঠা সম্ভব যখন সমাজ, পরিবেশ গায়ের রং দেখে নয়, নারীর যোগ্যতা, অবস্থার পরিবর্তন, শত প্রতিকূলতার মধ্যে নিজেকে খাপ খাইয়ে নেওয়ার পরিস্থিতিকে বিনা দ্বন্দ্বে সুন্দর মনে মেনে নিবে। ফর্সা ত্বকের প্রতি বদ্ধমূল আগ্রহ বিলোপ করতে হবে। রঙের উর্ধ্বে সৌন্দর্য।

লেখাঃ সুরাইয়া সম্পা, ইডেন মহিলা কলেজ।



বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top